দেশের বই ঈদ সাময়িকী

সুশান্ত হালদার-এর গুচ্ছ কবিতা

শুক্রবার, ২১ মে ২০২১ | ৩:৫৪ অপরাহ্ণ | 165 বার

সুশান্ত হালদার-এর গুচ্ছ কবিতা

সুশান্ত হালদার-এর গুচ্ছ কবিতা


 

অঙ্গিকার 

এ মায়ার বন্ধন ছিন্ন করি যতবার
বলেছে সুহাসিনী মজুমদার
‘দুয়ার খোলা রেখো, আসিব ফিরে সহসাই আবার’

ফুল চন্দনে বিশ্বাস নেই আমার
কবিতা লিখে বলেছিলাম ‘এ আমার অর্ঘ্য পূজার’
ভালো যদি বাসো : করিলাম আজ অঙ্গিকার
‘সৃষ্টিতে নারী ঈশ্বর আমার’

বলেছে মুরশিদ আমার
‘হাপরের আগুনেই চিনা যায় কামার’
তবে কেন বলেছিলে সুহাসিনী মজুমদার
‘নিরাকারে আমি-ই ঈশ্বর তোমার!’

 

সাফাই

চলে যাচ্ছে সবাই
এখনও পড়ে আছি নিথর; নিরুপায়
পৃথিবী জোড়া অসুখ, একাকীত্বের এ ভয়াবহ সময়
চারিদিকে শুধু বেদনাহত অনাহারী মানুষের কর্মবিমুখ অতিমারি ভবিষ্যৎ

কে আছে?
জীবানুর এ সন্ত্রাস ধুয়ে-মুছে এনে দিবে খরতাপে বৃষ্টিস্নাত বৈশাখ
শরবতে মুঠোভর্তি হাসির খলখল নদীর উচ্ছ্বাস
কে দিবে এ মহাদুর্যোগে চুমু ও চুম্বনের আশ্বাস
কে আছে?
দেবতার ঘরে রামায়ণ ফেলে আয়োজন করবে কবিতার উৎসব
কে আছে এমন
সঙ্গনিরোধেও ভালোবেসে ভুলে যাবে বাৎস্যায়ন

চলে যাচ্ছে সবাই
আমিও যদি চলে যাই মহাশূন্যতায় সহসাই
ভুল করে হলেও ভুলে যেও বাসর রাতের ‘সাফাই’!

 

তুমি তো আমারই ছিলে

তুমি তো আমারই ছিলে
বিরহ ব্যথা তাই তো বলে
এ দেশ ঘর ছেড়ে কোথায় যাব চলে?

বিষণ্ন বিকেল; পশ্চিমা বাতাসে আকাশ থরথর কাঁপে
বাউল কি এসেছিল প্রাতে?
জাত ধর্ম বলে বিচ্ছেদে ভেঙেছে তানপুরা রাগে

চলেই যদি যাব; কেন বলোনি মধুচন্দ্রিমা রাতে
অচেনা পথিকও জানে দেশ তার পায়ে পায়ে হাঁটে
সংসার বলো যাকে; সে তো ধর্মগুরু বানিয়েছে সুনিপুণ হাতে

রাজন্য বলে যাকে দিয়েছ প্রেম ভালোবেসে
সে কি জানে
সভ্য সমাজ আজ নগ্ন হয়েছে প্রেমহীন পৃথিবীর কাছে?

 

শরাবীয় সুখ

আমাদের ক্রন্দন বৃক্ষের ডালে ডালে
জ্বলে জ্বলে চিতার ভস্ম হয়েছি শ্মশানে
রোদে পুড়ে, জলে ভিজে নাম ফলকও মুছে গেছে
তবুও ইচ্ছে করে
পুড়ে যাওয়া আগুনেই জ্বলে ওঠি কালবৈশাখী ঝড়ে

তুমি তো আছ সুখে
শরাবে দিন করেছ পার নারী মাংস-লোভে
তোমার নামে উড্ডীন পতাকা আজ গম্বুজ থেকে গম্বুজে
তুমি বললেই নিয়নের বাতি জ্বলে ওঠে ভর দুপুরে

আমাদের ক্রন্দন উদভ্রান্ত বাতাস ফেরি করে চলে
বোঝ না বলেই
উত্তরের হাওয়ায় নিয়েছ সুখ নারী মাংস, শরাবে!

 

অচেনা

বড় অচেনা লাগে এই দেশ
তবুও কী যে মায়া
রূপোর থালায় খেলা করে পোড়া চাঁদের ছায়া

সেই মুখ, সেই বুক; নিতম্বিনী নারীর কাছে ডাকা
বড় মায়া, তবুও অচেনা
হাজারীবাগের চিৎকার আজও ভুলতে পারি না

তুমি তো আমারই ছিলে যমুনা
সঙ্গমে কতদিন করেছি উলঙ্গ দরিয়া
তবুও অচেনা
এই দেশ মাটি ও মানুষ ভুলে কি যাবে আঁধারে ঘেরা জোছনা?

Facebook Comments Box