সব অন্ধকার ঘরে একদিন আলো জ্বলে উঠবে : আসাদুজ্জামান জীবন

বুধবার, ০৬ জানুয়ারি ২০২১ | ৪:০৮ অপরাহ্ণ | 777 বার

সব অন্ধকার ঘরে একদিন আলো জ্বলে উঠবে : আসাদুজ্জামান জীবন

দেশের বইয়ের একটি নিয়মিত আয়োজন পাঁচটি প্রশ্ন। লেখক-প্রকাশকের কাছে বই প্রকাশনাসংশ্লিষ্ট অভিজ্ঞতা নিয়ে প্রশ্নগুলো করা। আজকের পাঁচটি প্রশ্ন আয়োজনে আমরা মুখোমুখি হয়েছি তরুণ কবি আসাদুজ্জামান জীবন-এর

প্রশ্ন ১। প্রথম বই প্রকাশের অভিজ্ঞতা জানতে চাই।

প্রতিটি মানুষের জীবনেই তার প্রথম যে সৃষ্টি, তার গুরুত্বটা আলাদা থাকে। প্রথম সন্তানের প্রতি মায়ের যে অকৃত্তিম মমতা, প্রথম বইয়ের প্রতিও একজন লেখকের মমতা একই রকম। নিজের প্রথম বই ‘মানুষ স্টেশন’ প্রকাশের পর থেকে মনে হচ্ছে, পাঠককে আরো ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করা উচিত।

আসাদুজ্জামান জীবনের প্রথম বই

প্রশ্ন ২। লেখালেখির ইচ্ছেটা কেন হলো?

লেখালেখির ইচ্ছেটা মূলত অন্যের লেখা বিভিন্ন আর্টিকেল এবং বই পড়তে পড়তে হয়েছে। একটা সময় মনে হয়েছে- কিছু জীবনবোধ কেবল বোধয় লেখালেখির মাধ্যমেই মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব।

প্রশ্ন ৩। লেখক জীবনের মজার কোনো অভিজ্ঞতা জানতে চাই।

আমার লেখক জীবনের সময়কাল খুবই কম, তাই ব্যক্তিজীবনে মজার অনেক ঘটনা থাকলেও, লেখক জীবনে তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো ঘটনা নেই।

প্রশ্ন ৪। বাংলাদেশে সৃজনশীল লেখালেখির ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আপনার মতামত জানতে চাই।

সৃজনশীল লেখালেখির ভবিষ্যত তো অবশ্যই আলোকিত। কেননা মানুষ এখন বই পড়ছে, তারা আলোচনা সমালোচনা করছে। একটি ভাল বই দ্রুতই পাঠকের মনে আলাদা একটা আবেগের জায়গা তৈরি করছে। সৃজনশীল লেখালেখি যেহেতু মেধা ও মননের পরিবর্তন ঘটাতে সক্ষম, সুতরাং একদিন এই দেশের সব অন্ধকার ঘরে নিঃসন্দেহে আলো জ্বলে উঠবে।

প্রশ্ন ৫। লেখালেখি নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন?

লেখালেখিকে আমি আসলে প্রফেশন হিসেবে নিতে চাইনি কখনো। এটা আসলে আমার নিজেকে প্রকাশ করার একটা মাধ্যম। অনেকভাবেই তো মানুষ হয়ে মানুষের পাশে আমাদের দাঁড়ানো উচিত, আমরা তা পারিনা। তবে, আমি চাই অন্তত কটা শব্দের বিনিময়েও তো মানুষের পাশে দাঁড়ানো যায়। যে অবসাদের জীবন অর্থ বিত্ত দিয়ে পরিপূর্ণ করা যায় না, তা কখনো কখনো দুটো লাইনে সম্ভব। ভবিষ্যত নিয়ে আমার পরিকল্পনা- আমি লিখব। মানুষের কথা লিখব। জীবনের কথা লিখব। মানুষের জন্য লিখব।

Facebook Comments Box