রবীন্দ্রনাথ-গান্ধী-সুভাষকে পরস্পরের স্নেহ ও শ্রদ্ধায় বেঁধেছেন স্বপন পাল

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ১:২৪ অপরাহ্ণ | 38 বার

রবীন্দ্রনাথ, গান্ধীর জন্ম প্রায় কাছাকাছি সময়ে, সুভাষ তারও কিছু পরে জন্মায়। রবীন্দ্রনাথ ও মহাত্মা গান্ধীর প্রথম সাক্ষাৎ হয় ৬ই মার্চ ১৯১৫ সালে শান্তিনিকেতনে। তাদের কাজের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য ছিলো,তবুও গান্ধীর দর্শনে মুগ্ধ না হয়ে পারেন নি রবীন্দ্রনাথ।
এদিকে রবীন্দ্রনাথ ও সুভাষের মধ্যেও ছিলো আদর্শিক মতপার্থক্য। আর গান্ধীর আদর্শের প্রতিও আস্থা ছিলোনা সুভাষের।
মহাত্মা গান্ধী চেয়েছিলেন শান্তির মাধ্যমেই শান্তি আনতে,কিন্তু সুভাষ যেনো জানতেন যে অস্ত্র ছাড়া এদেশ স্বাধীন হবার নয়!
ইতিহাসের এই তিনজন কিংবদন্তী একই সময়কালে জন্মান এবং তাদের মধ্যে ছিলো অনেক পার্থক্যও। কিন্তু সেসব পার্থক্য ছাড়িয়ে তাদের মধ্যকার পারষ্পরিকতা যেনো আরো উচ্চে।
তাদের ব্যাপারে জানতে কে না আগ্রহী হই আমরা! কিন্তু তাদের মধ্যকার যোগসূত্র আমরা ক’জনই বা জানি/জানতে চাই?
তাদের বিভিন্ন বিষয়ে মতানৈক্য ছিলো যেমন; শ্রদ্ধা, ভালোবাসা স্নেহও ছিলো অনেক।
মূলত এই তিনজনের মিল অমিলই তুলে ধরেছেন স্বপন পাল তার ‘রবীন্দ্রনাথ গান্ধী সুভাষ পারষ্পরিকতা’ বইটির মাধ্যমে।
উল্লেখ্য, স্বপন পাল আমার প্রিয় একজন লেখকের তালিকায়,কারণ উনি ইতিহাসের যেই অসাধারণ তথ্যমূলক বইগুলো লিখেছেন সেগুলো সত্যিই অসাধারণ।
বইটি পড়ে যেকেউ চিন্তার এক খোরাক পাবেন।
রবীন্দ্রনাথের সাথে সুভাষের প্রথম সাক্ষাৎ দিয়ে শুরু করে এ সম্পর্কিত অনেক বিষয় যথাঃ রবীন্দ্রনাথ গান্ধী সুভাষের মধ্যকার প্রীতি সম্পর্ক, তাদের নিজেদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি এবং যে কারণে তাদের মধ্যে তিক্ততাও সঞ্চারিত হয়েছে,কিন্তু সবকিছু ছাড়িয়ে তাদের মধ্যকার যে আন্তরিক সম্পর্ক তা তুলে ধরা হয়েছে বইটিতে।
কৌতুহলী-সতর্ক পাঠকের জন্য সুখপাঠ্য বইটি।

বইয়ের নামঃ রবীন্দ্রনাথ গান্ধী সুভাষ পারষ্পরিকতা
লেখকঃ স্বপন পাল
প্রকাশকঃ ভাষাচিত্র
মূল্যঃ ২১৫ টাকা


[ বই-পুস্তক-প্রকাশনা এবং বাংলাদেশের প্রকাশনা জগতের যে কোনো সংবাদ প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট ছবিসহ আমাদের ই-মেইল করতে পারেন : desherboi@gmail.com ]

Facebook Comments Box