টুকরো খবর

মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রি করছে পেণ্ডুলাম

বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৭:৩২ অপরাহ্ণ | 168 বার

মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রি করছে পেণ্ডুলাম

‘একই বই দুইজন ভিন্ন পাঠক কিনবেন ভিন্ন দামে! এ কেমন অসামঞ্জস্য? বাংলাবাজার থেকে কিনলে একরকম ছাড়, বাতিঘর থেকে কিনলে অন্যরকম ছাড়! ব্যাপারটা ভীষণ বিরক্তিকর! এই বিরক্ত থেকেই মূলত মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রির সিদ্ধান্ত নিই আমরা’- মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রি সম্পর্কিত সাহসী সিদ্ধান্তের পেছনের গল্প বলছিলেন পেণ্ডুলাম-এর প্রকাশক রুম্মান তার্শফিক।

“পাঠককে যে ২০-২৫% ছাড় দেওয়া হয় তা বই উৎপাদন মূল্যের সাথে আগেই যুক্ত করে একটা বাড়তি মূল্য নির্ধারণ করা হয়। এই লুপহোলের কথা জানে প্রকাশক-বিক্রেতা-পাঠক। তবুও প্রকাশনা ও বিপণন শিল্পে ছাড় সংক্রান্ত অসততা বিদ্যমান। বাংলাদেশে আর কোনো পণ্যে ক্রেতা পর্যায়ে সর্বজনীন কমিশন দেওয়ার রেওয়াজ নেই। তবু দিন দিন বইয়ের প্রকাশনীগুলো কমিশনের প্রতিযোগিতায় নেমেছে। এ প্রতিযোগিতায় থ্রিলার-অনুবাদ প্রকাশকদের দৌঁড়ের গতি সব থেকে বেশি। অথচ এই কমিশনের গোঁড়ার ইতিহাস ভিন্ন। বাংলা সাহিত্যের মূল পাঠক ও পৃষ্ঠপোষক মধ্যবিত্ত শ্রেণির পাঠককে বিশেষ সুবিধা দেওয়ার ইচ্ছে থেকেই কমিশনের রেওয়াজ চালু করা হয়। কিন্তু বর্তমান সময়ে বিপণন ব্যবস্থার অসামঞ্জস্য থাকার কারণে একই বই ভিন্ন বিপণীবিতানে ভিন্ন দামে সরবরাহ করা হয়। ব্যাপারটি ভীষণ বিরক্তিকর।”

বাংলাবাজার থেকে যে বই একজন পাঠক ৩৫% ছাড়ে কিনতে পারে সেই বই হয়তো রকমারি ডট কমে কিনতে হয় ১২ থেকে ১৫% ছাড়ে, বাতিঘরে হয়তো পাওয়া যায় ২৫%। পরিচিত মহলে লেখক-প্রকাশকের জন্য এটা অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রকাশক রুম্মানও এর ভুক্তভোগী। সেই অস্বস্তির জায়গা থেকে মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রির সাহসী সিদ্ধান্ত নেয় পেণ্ডুলাম প্রকাশনী।
এর আগেও বেশ কিছু প্রকাশনী এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কিন্তু নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকতে পারেননি তারা। নিজেদের উদ্যোগে অবিচল থাকার ইচ্ছে ব্যক্ত করেছেন পেণ্ডুলামের প্রকাশক।

পাঠকের সাড়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি জানান, ইতিবাচক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। অনেক পাঠক এটাকে সাধুবাদ জানিয়েছে। ঢাকার একজন পাঠক বাংলাবাজার থেকে যে দামে বই কিনতে পারবে উত্তরবঙ্গের একজন পাঠক অনলাইনে একই দামে বইটি সংগ্রহ করতে পারছে। এই ব্যাপারটা পাঠকের কাছে তুষ্টির। পেণ্ডুলাম মূলত পাঠকের জন্য বই প্রকাশ করে, পাঠকের হাতে বই পৌঁছে দিতে চায়। আর মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রির সিদ্ধান্ত সর্বস্তরের পাঠকের কথা ভেবেই শুরু করা। তবে কিছুক্ষেত্রে বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়। বিশেষ কমিশনে অভ্যস্ত পাঠকদের একদল কমিশন সংক্রান্ত লুপহোলের ব্যাপারটা জানে না বলেই হয়তো বিরূপ মন্তব্য করে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের অক্টোবরে যাত্রা শুরু করে পেণ্ডুলাম। এ পর্যন্ত তাদের প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৪৩। পেণ্ডুলাম মুদ্রিত মূল্যে বই বিক্রির সংস্কৃতি শুরু করে ২০২১ সালের জানুয়ারিতে।


[ বই-পুস্তক-প্রকাশনা এবং বাংলাদেশের প্রকাশনা জগতের যে কোনো সংবাদ প্রকাশের জন্য আমাদের ই-মেইল করতে পারেন : desherboi@gmail.com ]

Facebook Comments Box