ঈদ সাময়িকী ॥ জানা-অজানা

টেইক এ বুক গিভ এ বুক

শনিবার, ০১ আগস্ট ২০২০ | ৪:৩০ পূর্বাহ্ণ | 87 বার

টেইক এ বুক গিভ এ বুক

জানা-অজানা

টেইক এ বুক গিভ এ বুক

॥ সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল ॥

আমি কিছুদিন কানাডার রাজধানী অটোয়ায় অরলিন্স লাইব্রেরিতে কাজ তথা চাকরি করেছি। সে এক অন্যরকম অভিজ্ঞতা। সেই অভিজ্ঞতা আরেক দিন লিখবো। আজ টরেন্টো শহরের মজার একটি বিষয় নিয়ে লিখবো। আর এই বিষয়টি হচ্ছে ‘টেইক এ বুক গিভ এ বুক’।
টরেন্টোর ফুটপাতে হাঁটছেন, দেখবেন আপনার চারপাশে ফুটে আছে নানা রঙের, নানা জাতীর ফুল! পার্কে হাঁটছেন, সেখানেও পাবেন নানান আধুনিক ব্যবস্থা। পাড়া-মহল্লায়, আবাসিক এলাকায় হাঁটতে হাঁটতে হঠাৎ চমকে গিয়ে থমকে দাঁড়াবেন। দেখবেন, কোথাও গাছের উপর, কোথাও দেয়ালে কবুতরের খোপের মতো ছোট ছোট ঘর, চমৎকার ডিজাইনের কাঠের বাক্স। সামনে কাঁচের পাল্লা। নান্দনিক ফ্রি লাইব্রেরি। তাতে লেখা- ‘Take a Book, Leave a Book.’ ভেতরে থরে থরে সাজানো বই আর বই। পাল্লায় কোনো তালাচাবির ব্যবস্থা নেই। কোনো একটি বই পছন্দ হলে তা বাড়ি নিয়ে যান। পড়ুন এবং ইচ্ছে হলে ফেরৎ দিয়ে যান। আর যদি তা নিজের সংগ্রহে রাখতে চান তো রাখুন। আবার চাইলে আপনার সংগ্রহের কোনো বই যা আপনি অন্যকে পড়তে দিতে চান, রেখে আসুন পাহারাদার বা তালাচাবিবিহীন এ ক্ষুদে লাইব্রেরিতে।

 

কানাডার ভ্যাংকুভারসহ অন্যান্য শহরেও এই ধরনের মিনি লাইব্রেরি আছে। গতবার ফ্রাংঙ্কফুর্টের একটি পার্কেও অনুরূপ ফ্রি-লাইব্রেরি দেখেছি।

আবার পৃথিবীর কোনো কোনো দেশে গাড়িতে বই পড়লে ভাড়া ফ্রি করে দেয়া হয়। এবার কানাডায় শুরু হতে যাচ্ছে গাড়িতে বিনামূল্যে বই পড়ার সুযোগ! টরেন্টো শহরের ট্রেন, পাতাল ট্রেন, গো ট্রেন, ট্রাম এবং বাসে যাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে বই পড়ার সুযোগ করে দিচ্ছে টিটিসি অর্থাৎ টরেন্টো ট্রানজিট কমিশন। নাগরিকদের মধ্যে পাঠাভ্যাস বৃদ্ধি এবং বইকে জনপ্রিয় করে তোলার জন্য সম্প্রতি এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, পৃথিবীর উন্নত কয়েকটি দেশে বইপড়ুয়া যাত্রীদের জন্য যাতায়াত ভাড়া ফ্রি করে দেয়া হয়। ‘বুক অন দ্য ট্রানজিট’ কর্মসূচির লোগো টিটিসির লোগোর অনুকরণে করা হয়েছে।
উল্লেখিত যানবাহনগুলোতে বিশেষ ব্যবস্থায় নানা ধরণের বই রাখা হবে। যে কোনো জায়গা থেকে যাত্রীরা তাদের পছন্দমতো বই পড়তে পারবেন, ব্যাগে ভরে বাসায়ও নিতে পারবেন। পড়ার পর আবার যে কোনো যানবাহনে তা ফেরৎ দিতে পারবেন। ইতিমধ্যে বই সংগ্রহের জন্য লেখক, প্রকাশক, লাইব্রেরি এবং বিভিন্ন ব্যক্তিপর্যায়ে আহ্বান জানানো হয়েছে।
উল্লেখ্য, লন্ডনেও প্রথম এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হলো। এছাড়া হল্যান্ডে প্রাইভেট কারে যাতায়াত হ্রাস করে পাবলিক ট্রান্সপোর্টের যাতায়াতে উৎসাহী করার জন্য বইপড়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে পাঠক-যাত্রীদের ভাড়া সম্পূর্ণ ফ্রি!

 

দেশের বই পোর্টালে লেখা পাঠাবার ঠিকানা : desherboi@gmail.com

Facebook Comments