ঈদ সাময়িকী ॥ কবিতা

চাণক্য বাড়ৈ-এর গুচ্ছ কবিতা

মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০ | ১২:১০ পূর্বাহ্ণ | 499 বার

চাণক্য বাড়ৈ-এর গুচ্ছ কবিতা

মাতাল পদাবলি”
চাণক্য বাড়ৈ-এর গুচ্ছ কবিতা

 

মাতাল পদাবলি

তুমি আমার উথাল-পাতাল রাত
তুমি আমার মাতাল পদাবলি
তুমি আমার গন্ধরাজের ছোঁয়া
ঠিক দুপুরে স্নিগ্ধ গানের কলি

 

তুমি উদাস একলা সকাল বেলা
অলক্ষ্যে এক মিষ্টি পাখির ডাক
রং ছড়ানো বিমুগ্ধ ফাল্গুন
বজ্রমেঘের অশান্ত বৈশাখ।

 

তুমি আমার হাতের পরে হাত
বিকল্পহীন নির্ভরতার ছাদ
কেমন রাখো চোখের পরে চোখ
জানি না তার নিখুঁত অনুবাদ।

 

তুমি আমার শূন্য মেসেঞ্জারে
হাসির ইমোয় ছড়িয়ে থাকা সুখ
বিষণ্নতার নিকষ অন্ধকারে
চাঁদের মতো ছলকে ওঠা মুখ।

 

ভালোবাসার স্বচ্ছ জলে তুমি
পদ্মফুলের সদ্য ফোটা কলি
পদ্য লেখার প্রেমের খাতা জুড়ে
তুমি আমার মাতাল পদাবলি।

 

যদি

কেমন হতো—
আমি যদি ফিরে যেতাম বিশে
তুমিও পেতে ব্যাকুল আঠারোকে
মাঘ-বিকেলে যেতাম মেঠোপথে
তুচ্ছ করে, ভাবছে কী সব লোকে।

 

হয়তো তুমি পড়তে বসে গেছো
জানলা খোলা বোশেখ মাসের রাতে
উড়ছি আমি ছোট্ট জোনাক হয়ে
জ্বলছি আবার তোমার নখে-হাতে

 

হয়তো সেদিন আমার কলেজ ছুটি
মনটাও বেশ মগ্ন নিরুদ্দেশে
হুড়মুড়িয়ে দরজা ঠেলে তুমি
এসেছিলে ফুলের গন্ধে ভেসে

 

জীবনটা খুব ছোট্ট সে তো জানি
আরও ছোট মহার্ঘ্য যৌবন
তুমিই পারো মধুর করে দিতে
বিষণ্নতার হাজার অনুক্ষণ।

 

আবার যদি এমন সুদিন আসে
আমি বিশ আর তুমি আঠারোতে
রটিয়ে দেব তোমার আমার প্রেম
ভয় পাব না মিথ্যে কলঙ্কতে।

 

তোমার বাড়ি যাব

হঠাৎ তোমার বাড়ি যাব, হঠাৎ কোনো দিনের শেষে রাত্রিবেলা
জমবে আবার খুনসুটিটা, শ্যাম্পু করা চুলের ভেতর আঙুল খেলা
হঠাৎ তোমায় চমকে দেব, আচম্বিতে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে
বোতাম খুলে দেখিয়ে দেব, তোমায় ছাড়া বুকের ভেতর কেমন পোড়ে

হঠাৎ যদি প্রশ্ন করো, দগদগে ঘা বুকে নিয়ে কেমনে বাঁচি?
ওই যে তুমি চোখ নামিয়ে, মিথ্যে করে প্রায়ই বলো ‘পাশেই আছি’।

 

তাইতো আবার হঠাৎ যাব, বাঁচার প্রবল ইচ্ছে নিয়ে তোমার কাছে
মেখে নেব সমস্ত গা’য় তোমার অঙ্গ সঞ্জীবনী, আর যা আছে।

 

অবেলায়

আবার তোকে পড়ছে মনে এই অবেলায়
আবার কেন কাঁদছে আকাশ শ্রাবণ ধারায়
কেউ বোঝে না দুচোখ কেন কান্না ঝরায়
বুকটা পুড়ে খাক হয়ে যায় ভীষণ খরায়।

 

হঠাৎ কেন মধ্যরাতে ঘুম ছুটে যায়
তোকে দেখার তৃষ্ণা লাগে চোখের তারায়
লক্ষ বছর আড়াল ছিলি কোন অজানায়
শূন্য ছিল, তুই ছিলি না বুকের খাঁচায়।

 

যখন ভাবি বাঁধব এ বুক নতুন আশায়
কেন এমন যন্ত্রণা দিস অবলীলায়
হৃদয়টা তোর ভরা নাকি নিষ্ঠুরতায়
হয়তো আমার দুঃখ লেখা জীবনখাতায়?

 

আবার তোকে পড়ছে মনে এই অবেলায়
পুড়ছে হৃদয়, কাঁদছে আকাশ শ্রাবণ ধারায়।

 


দেশের বই পোর্টালে লেখা পাঠাবার ঠিকানা : desherboi@gmail.com

Facebook Comments