উপন্যাস লেখা শুরু করেছিলাম, ওটা শেষ করে যেতে চাই : হাফিজ রহমান

বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১ | ৪:১১ অপরাহ্ণ | 186 বার

উপন্যাস লেখা শুরু করেছিলাম, ওটা শেষ করে যেতে চাই : হাফিজ রহমান

দেশের বইয়ের একটি নিয়মিত আয়োজন পাঁচটি প্রশ্ন। লেখক-প্রকাশকের কাছে বই প্রকাশনাসংশ্লিষ্ট অভিজ্ঞতা নিয়ে প্রশ্নগুলো করা। আজকের পাঁচটি প্রশ্ন আয়োজনে আমরা মুখোমুখি হয়েছি গল্পকার– হাফিজ রহমান-এর


 

প্রশ্ন ১। প্রথম বই প্রকাশের অভিজ্ঞতা জানতে চাই।

আমি কবিতা লিখেছি ১৯৮০-৮৩ সালে, আমার ছাত্রজীবনে। সে সময় যশোরের দুটি পত্রিকায় আমার লেখা ছাপা হতো। ১৯৮৪ তে কর্মজীবন, তখন লেখালেখির কথা বেমালুম ভুলে যাই। তখনকার সেই লেখা যে বই আকারে প্রকাশিত হতে পারে, এ ধারণা আমার ছিল না।

২০১৪ সালে স্ট্রোক করে দীর্ঘদিন শয্যাশায়ী থাকাকালীন ফেসবুকে নানা গ্রুপে কবিতা দেখে আমার ত্রিশ বছর আগের লেখা পোস্ট করতে থাকি। সেই কবিতা দেখে একজন প্রকাশক বই প্রকাশের প্রস্তাব দিলে আমি তড়িঘড়ি শয্যাশায়ী অবস্থায় বেশ অর্থ গচ্ছা দিয়ে ২০১৫ সালে প্রথম বই প্রকাশ করি।

প্রশ্ন ২। লেখালেখির ইচ্ছেটা কেনো হলো?

লেখালেখির একটা সুপ্ত ইচ্ছে স্কুল জীবনেই ছিল। অনেকেরই যেমন হয়, কৈশোরিক প্রেমের কারণে হঠাৎ আবেগে লেখা
‘এখনও বোঝনা কত ভালবাসি তোমারে আপন মনে/ তোমারে নিয়ে যে কত ছবি আঁকি হৃদয়ে নির্জনে’।

জাতীয় লেখা থেকে কলেজের ছাত্র রাজনীতি, ছাত্র সংসদের সাহিত্য সম্পাদক, সব মিলে লেখার একটা প্রবল আগ্রহ, তাতে যশোরের দুটি পত্রিকায় নিয়মিত প্রকাশিত হওয়ার আনন্দ, এভাবেই লেখা। আবার ১৯৮৪ সালে কর্মজীবন শুরু হলে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়া। আবার ২০১৪ সালে স্ট্রোক জনিত শয্যাশায়ী অবস্থায় ফেসবুকে নবীন প্রবীণ কবিদের লেখা পড়ার সুবাদে বইটা প্রকাশ হওয়ার কারণে নতুন করে লেখার আগ্রহ প্রবল হয়ে ওঠে।

প্রশ্ন ৩। লেখক জীবনের মজার কোনো অভিজ্ঞতা জানতে চাই।

আমার লেখক জীবন মূলত সীমিত সময়ের, তারও দুটো পর্যায়। প্রথম পর্যায়ে আনন্দের অভিজ্ঞতা, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, যশোর জেলা শাখা আয়োজিত সাহিত্য প্রতিযোগিতায় কবিতায় প্রথম পুরস্কার পাওয়া, দ্বিতীয় পর্যায়ে ফেসবুকের কল্যাণে বেশ কিছু পাঠক থেকে চরম অনুপ্রাণিত হয়ে স্বল্প সময়ে বেশকিছু লেখা লিখতে পারাটাই আমার মজার অভিজ্ঞতা।

প্রশ্ন ৪। বাংলাদেশের সৃজনশীল লেখালেখির ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আপনার মতামত জানতে চাই।

আমার কাছে সৃজনশীলতা বলতে সাহিত্যের মাধ্যমে একটা আবেদন সৃষ্টি করা, যাতে সমাজ, রাষ্ট্র উপকৃত হয়। এক্ষেত্রে চরম একটা বন্ধ্যা সময় অতিক্রম করছে বলে মনে হয়। তবে অচিরেই কোনো এক দুর্দান্ত তারুণ্য বেরিয়ে আসবে, যার শানিত কলমে ধ্বনিত হবে নতুন বারতা!

প্রশ্ন ৫। লেখালেখি নিয়ে আপনার ভবিষ্যত স্বপ্ন?

বর্তমানে অবসর জীবন। আজ, ২০ জানুয়ারি, ৬২ তে পারে রাখলাম। বলতে গেলে শেষ লগ্নই হয়তোবা। তবু ফেলে আসা সময় আর বর্তমানের ধারায় ভবিষ্যতের চিত্র তুলে ধরার মতো কোনো একটা ভাল কাজ করে যাওয়ার প্রবল ইচ্ছে থেকে একটা উপন্যাস লেখার কাজ শুরু করেছিলাম, ওটা শেষ করে যেতে চাই।


দেশের বই পোর্টালে লেখা পাঠাবার ঠিকানা : desherboi@gmail.com

Facebook Comments Box