অমর একুশে গ্রন্থমেলায় চলচ্চিত্রবিষয়ক নতুন বই

শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ১২:৪৪ পূর্বাহ্ণ | 402 বার

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় চলচ্চিত্রবিষয়ক নতুন বই

চলচ্চিত্রের শুরুর ইতিহাস আমাদের অজানা। তবে, লুমিয়ের ভ্রাতৃদ্বয় তাদের তৈরী দশটি ছোট ছোট চলচ্চিত্র নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে প্রথমবারের মতো প্রদর্শন করেন। সময়টা ১৮৯৫ সালের ২৮শে ডিসেম্বর। চলমান ছবিকে অভিক্ষেপের মাধ্যমে সফলভাবে প্রদর্শনের এটিই প্রথম নিদর্শন। কালক্রমে চলচ্চিত্রের পরিধি বেড়েছে বহুগুণে এবং বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা ও পাঠের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাদের নিরন্তর সাধনার ফলে,অনেক কালজয়ী সিনেমা তৈরী হয়েছে, হচ্ছে।

সে ছোঁয়া লেগেছে আমাদের ভূ-খন্ডের চলচ্চিত্র প্রমিদের মননে। অনেকে চলচ্চিত্র সম্পর্কে ব্যাপকভাবে জানার তাগিদে উচ্চতর পর্যায়ে অধ্যয়ন করছেন দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্য প্রতিষ্ঠিত ‘ ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ‘ বিভাগে । তবে, মাতৃভাষার জন্য জীবন উৎসর্গকারী সূর্য সন্তানদের এই বাংলায় ‘চলচ্চিত্র ‘ নিয়ে গ্রন্থের সংখ্যা অপ্রতুল। উপন্যাস, ছড়া-কবিতা, ছোটগল্প, নাটক,রাজনীতি,দর্শন,ইতিহাস, জীবনীগ্রন্থের পাশাপাশি চলচ্চিত্র শিল্প নিয়ে আমাদের লেখক,গবেষকদের ভাবতে হবে।

‘মহারাজা তোমারে সেলাম’

ভূতের রাজা দিলো বর, জবর জবর তিন বর। গুপী-বাঘাকে ভূতের রাজার দেয়া বরগুলো দিয়ে তারা যেমন মানুৃষকে মোহাবিষ্ট করে রাখতে পারতো। আমাদের গল্পের মহারাজার সেই ক্ষমতা ছিলো প্রবলতর। তিনি তাঁর চলচ্চিত্রের মাধ্যমে মানুষকে মোহাবিষ্ট করে রাখতেন।ইতিহাস,সাহিত্য,রম্য,রোমাঞ্চ, ভ্রমণ,ফ্যান্টাসি কোনো কিছুরই কমতি পরিলক্ষিত হয়নি তাঁর সৃষ্টিকর্মে। রবীন্দ্রনাথের কাদম্বনীর মতো সত্যজিৎ ভক্ত মুহাম্মদ আলতামিশ নাবিল প্রমাণ করার চেষ্টা করেছেন সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টিকর্মের কালোত্তীর্ণ সাক্ষরকে। তরুণ প্রজন্মের কাছে তাঁর চলচ্চিত্ররস আস্বাদনের দিকগুলো ফুঁটিয়ে তুলেছেন ‘মহারাজা তোমারে সেলাম ‘ বইটিতে। সত্যজিৎ রায়ের কঠোর অধ্যবসায় এবং মেধার কাছে বাংলা সিনেমা অনেকাংশে ঋণি। তিনি বাংলা সিনেমাকে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে যান এবং কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি একাডেমী সম্মানসূচক পুরস্কার অস্কার অর্জন করেন।

আলোচিত গ্রন্থের রচয়িতা আলতামিশ নাবিল সত্যজিৎ রায়ের কালোত্তীর্ণ চলচ্চিত্র সৃষ্টিগুলো নিয়ে গবেষণাধর্মী লেখা তুলে ধরেছেন। বইটিতে সত্যজিৎ রায়ের ফেলুদা সিরিজের প্রথম দুটি সিনেমা ‘সোনার কেল্লা’ ও ‘জয়বাবা ফেলুনাথ’ সম্পর্কে তথ্যসহ সিরিজের অন্যান্য নির্মাণ নিয়েও বিশদভাবে লিখেছেন নাবিল। লেখকের কলম থেকে,’ বইটি দিয়ে সত্যজিৎ রায় পরিচালিত সমস্ত চলচ্চিত্রগুলোর কাহিনি,নির্মাণ,নির্মাণের পেছনের ঘটনাসহ বিভিন্ন দিক আলোচনার চেষ্টা চালানো হয়েছে। বইটি পড়ে কেউ সত্যজিৎ রায়ের নতুন কোনো ছবি দেখতে উদ্যত হলে আমার প্রচেষ্টা সার্থক হবে।

‘মহারাজা তোমরে সেলাম’ গ্রন্থটি কবি প্রকাশনি থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বইটির প্রচ্ছদ অলংকৃত করেছেন সাজ্জাদুল ইসলাম সায়েম। বইটির মূল্য ২০০ টাকা।

‘চলচ্চিত্র বোধিনী’

এবারের বইমেলায় কথাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে সাংবাদিক, লেখক বিধান রিবেরুর গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্র বোধিনী’। ঠাকুর পরিবারের দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাময়িকপত্র ‘তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা’ থেকে ‘বোধিনী’ শব্দটি নিয়ে গ্রন্থের নাম ‘চলচ্চিত্র বোধিনী’ হয়েছে। চলচ্চিত্র বোধকে শাণিত করার লক্ষে বিধান রিবেরুর এই প্রয়াস। লেখকের ভাষায়, ‘ গ্রন্থটিকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম ভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র ও তার স্বরূপ আলাপ করা হয়েছে। দ্বিতীয় ভাগে, এসেছে চলচ্চিত্র ও সাহিত্যের মিল-অমিল ও তাদের অন্তর্গত শক্তির কথা। আরও এসেছে চলচ্চিত্র সাহিত্যের কথা। সর্বশেষ ,তৃতীয় ভাগে রয়েছে ইতিহাস ভ্রমণ। ‘

‘চলচ্চিত্র বোধিনী’র লেখক বিধান রিবেরু পেশায় একজন সাংবাদিক। তবে,লেখালেখি তার ভালোলাগার জায়গা। এ পর্যন্ত চলচ্চিত্র বিষয়ে তার পাঁচটি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। তার সর্বশেষ গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্র বোধিনী’র প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পি সব্যসাচী হাজরা। বইটির মূল্য ২৫০ টাকা।

‘চলচ্চিত্রপাঠ’

বাংলাদেশে চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের নেতা/ব্যক্তিত্ব বেলায়েত হোসেন মামুনের সংগ্রহ ও সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়েছে চলচ্চিত্র বিষয়ক গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্রপাঠ’। বইটি সম্পর্কে সম্পাদকের ভাষ্য, ‘ বইটি প্রথমে ২০১২ সালে মুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি থেকে পেপারব্যাক আকারে প্রকাশিত হয়।কিন্তু প্রথম সংস্করণের প্রায় অর্ধেক প্রবন্ধ এই সংস্করণে রাখা সম্ভব হয়নি। সেখানে নতুন প্রবন্ধ যুক্ত হয়েছে।সবদিক বিবেচনা করলে গ্রন্থটি এখন নতুনভাবেই প্রকাশিত হয়েছে। বইটি রচনার উদ্দেশ্য ছিল চলচ্চিত্র বিষয়ে পড়তে ও জানতে আগ্রহী তরুণদের হাতে সহজ ও কার্যকর একটি বই উপহার দেওয়া। ‘

‘চলচ্চিত্রপাঠ’ গ্রন্থটিতে চলচ্চিত্রের সাথে সম্পৃক্ত কালজয়ী ব্যক্তিদের প্রবন্ধের সমন্বয় ঘটানো হয়েছে। চলচ্চিত্র প্রেমিদের জন্য গ্রন্থটি এ বিষয়ে বিস্তৃত পাঠে অনুপ্রাণিত করবে। সত্যজিৎ রায়,ধীমান দাশগুপ্ত,ধীরেশ ঘোষ,পঙ্কজ পালিত,ড.ডব্লিউ.এইচসহ আরও অনেকের প্রবন্ধের সমন্বিত প্রয়াস ‘চলচ্চিত্রপাঠ’। বইটির প্রচ্ছদ অলংকৃত করেছেন শিল্পি সব্যসাচী হাজরা। কথা প্রকাশ থেকে প্রকাশিত বইটির মূল্য ৩০০ টাকা।

এছাড়া এবারের বইমেলায় চলচ্চিত্রের উপর প্রকাশিত অন্যান্য গ্রন্থের তালিকায় রয়েছে- খন্দকার মাহমুদুল হাসান রচিত গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্র ‘ । গ্রন্থটি কথাপ্রকাশ থেকে বের হয়েছে। বইটির মূল্য ১০০০ টাকা।

রোদেলা প্রকাশনির ব্যানারে এসেছে সৈয়দ নাজমুস সাকিবের বই ‘সিনেমামা’। গ্রন্থটির প্রচ্ছদ করেছেন আবুল ফাতাহ। মূল্য ২০০ টাকা । এর আগে ‘সিনেম্যান’ নাম চলচ্চিত্র বিষয়ে তার একটি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

অন্যদিকে, শ্রাবণ প্রকাশনি থেকে বের হয়েছে নির্মাতা রেজা ঘটকের বই ‘চলচ্চিত্রের দেশ বিদেশ ‘ । গ্রন্থটির মূল্য ৩৫০ টাকা।